ঝিকরগাছার দেউলি গ্রামে দেড় বছরের শিশু নিখোঁজ,সন্দেহের তীর ছদ্মবেশী ভিক্ষুক চক্রের দিকে

ঝিকরগাছার দেউলি গ্রামে দেড় বছরের শিশু নিখোঁজ,সন্দেহের তীর ছদ্মবেশী ভিক্ষুক চক্রের দিকে

অক্টোবর ১০ ২০২৩, ১২:৫৫

যশোর অফিস:  যশোরের ঝিকরগাছায় মারিয়া খাতুন নামে এক দেড় বছরের শিশু নিখোঁজ রয়েছে। মঙ্গলবার (১০ অক্টোম্বর )সন্ধা পর্যন্ত ওই শিশুর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ মারিয়া খাতুন ঝিকরগাছা উপজেলার দেউলি গ্রামের মহিনুর রহমানের মেয়ে।

এলাকাবাসি ও পরিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার (৯ অক্টোম্বর) সকাল ১০টার দিকে শিশু বাড়ীর পাশে রাস্তায় খেলা করছিলো। অনেক সময় পার হয়ে গেলেও সে আর বাড়িতে ফেরেনি। পরে তার আত্মীয়-স্বজনসহ পরিবারের লোকজন আশপাশের বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করেও তার কোনো সন্ধান পায়নি।শিশু মারিয়া নিখোঁজ হওয়ার আগে কিছু যুবক বাড়ীতে এসেছিলো ভিক্ষা করতে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়। তার পর থেকে শিশুটি নিখোঁজ হয়েছে বলে তারা জানান।

ইউপি সদস্য হুমায়ন কবির জানান, শিশু হারিয়ে যাওয়ার খবর পেয়ে তার পরিবারকে ঝিকরগাছা থানায় একটি সাধারন ডায়েরি (জিডি)করার পরামর্শ দিয়েছি।শুনেছি গ্রামে কিছু যুবক ভিক্ষা করতে এসেছিলো তার পর থেকে শিশুটি নিখোঁজ। তিনি আরো জানান ,শিশু মারিয়ার বাড়ী বেত্রাবতী নদীর ধারে হওয়ায় ধারনা করা হচ্ছে পানিতে ডুবেও যেতে পারে। এ জন্য ঝিকরগাছার ফায়ার সার্ভিস মঙ্গলবার সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত নদীতে উদ্ধার কাজ চালিয়েছে।কিন্তু মারিয়ার কোন খোঁজ মেলেনি।

ঝিকরগাছার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার জানান,নয়ন বাবু চৌধুরী জানান, ঝিকরগাছা থানার ওসি স্যারের নির্দেশে দেউলি গ্রামে বেত্রাবতী নদীতে একটি শিশু ডুবে গেছে।খবর পেয়ে আমরা খুলনা থেকে ডুবুরী নিয়ে এসে সকাল থেকে নদীতে উদ্ধার অভিযান চালায়।এটা এখনো পর্যন্ত চলমান রয়েছে বলে তিনি জানান।

ঝিকরগাছার থানার ওসি সুমন ভক্ত জানান, শিশু নিখোঁজের ব্যাপারে থানায় এখনো পর্যন্ত কোন অভিযোগ পায়নি। খবরটি শোনার পর আমরা স্বেচ্ছায় উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে তদন্তের কাজ চালাচ্ছি।পাশাপাশি আমরা উদ্যোগ নিয়ে ফায়ার সার্ভিসকে সংবাদ দেই।যেহেতু বাড়ীর পাশে নদী আছে।পরিবারের কেও বলতে পারছেনা।পানিতে পড়েছে নাকি হারিয়ে গেছে।আশা করা যায় দ্রুতই উদ্ধার বলে তিনি জানান।

এদিকে হারিয়ে যাওয়া পরিবারে চলছে শোকের আহাজারি।